1. smbipplob88@gmail.com : Masud Mukul : Masud Mukul
  2. newsbipplob2014@gmail.com : এস এম বিপ্লব ইসলাম : এস এম বিপ্লব ইসলাম
ভুল রক্তে প্রসুতির মৃত্যু : তদন্ত কমিটি গঠন
শুক্রবার, ১৪ মে ২০২১, ০৮:০০ অপরাহ্ন
শিরোনাম:

ভুল রক্তে প্রসুতির মৃত্যু : তদন্ত কমিটি গঠন

মাসুম লুমেন, গাইবান্ধা প্রতিনিধি
  • প্রকাশের সময় : সোমবার, ১৯ এপ্রিল, ২০২১
  • ২১ বার পঠিত

গাইবান্ধা জেলা হাসপাতালে ভুল রক্তে প্রসুতির মৃত্যুর ঘটনা খতিয়ে দেখতে তদন্ত কমিটি গঠন করেছে জেলা হাসপাতাল কতৃপক্ষ। গাইবান্ধা জেলা হাসপাতালের কনসালটেন্ট (অর্থপেডিক্স) আবু দাউদ মো. গোলাম মোস্তফাকে সভাপতি করে চার সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন গাইবান্ধা জেলা হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. হারুন-অর রশিদ। তিনি নিজেও তদন্ত কমিটির একজন সদস্য। তিনি বাদে অন্য দুই সদস্য হলেন সিভিল সার্জন কার্যালয়ের চিকিৎসক ডা. শরীফ আহমেদ ও জেলা হাসপাতালের ল্যাব মেডিকেল অফিসার  ডা. রেজাউনুল রহমান শিহাব। আগামী একসপ্তাহের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করতে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে বলেও জানান জেলা হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. হারুন-অর রশিদ।

উল্লেখ্য গত ১৩ এপ্রিল মঙ্গলবার রাতে মিম (২৬) ইসলাম নামে এক প্রসূতির শরীরে ভুল গ্রুপের রক্ত দেয়ার কারনে তার মৃত্যু হয় বলে অভিযোগ করেন রোগীর স্বজনরা। সেসময়  রোগীর স্বজনরা ব্যপক উত্তেজনা ও ক্ষোভ প্রকাশ করলে পুলিশ এসে উত্তপ্ত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। এনিয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রচার হয় এবং বিভিন্ন সংস্থা তদন্ত কমিটি গঠনের দাবি করেন। এরই প্রেক্ষিতে মৃত্যুর প্রকৃত কারন ও অবহেলার বিষয়টি স্পষ্ট করতে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। কমিটিকে জরুরিভিত্তিতে তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

স্বজনদের অভিযোগ, রোগির স্বজনদের অভিযোগ, বিভিন্ন ক্লিনিকের পরীক্ষায় রোগীর রক্তের গ্রুপ ‘ও পজিটিভ’। এছাড়া তাদের পরিবারের অনেকেরই রক্তের গ্রুপ ‘ও পজিটিভ’। কিন্তু ডাক্তার ‘এবি পজিটিভ’ রক্ত চাওয়ায় আমরা সেই গ্রুপের রক্ত সংগ্রহ করে দিয়েছি। পরপর দুই ব্যাগ ভুল গ্রুপের রক্ত শরীরে পুশ করার কারনেই তার মৃত্যু হয়েছে। রোগীর মামা আসাদুজ্জামান বাবু বলেন, সেদিনের সেই মৃত্যুর মূল রহস্য উন্মোচন করতে তদন্ত প্রতিবেদনের জন্য আমরা অপেক্ষা করছি।

চিকিৎসকের অবহেলার অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে হাসপাতালের কর্তব্যরত গাইনি চিকিৎসক তাহেরা আক্তার মনি জানিয়েছিলেন, অতিরিক্ত রক্তরক্ষণে প্রসুতির মৃত্যু হয়েছে। হাসপাতালের প্যাথলজিতে ‘এবি পজেটিভ’ রক্তের গ্রুপ নিশ্চিত হওয়ার পর রোগীর শরীরে রক্ত দেয়া হয়েছে। অন্য কোন কারনে প্রসুতির মৃত্যু হয়নি। এছাড়া অন্যকোন হাসপাতালে রক্ত পরীক্ষায় রক্তের গ্রুপ ও পজেটিভ হয়েছিল কিনা তা আমার জানা নেই। এ ব্যাপারে জানতে জেলা হাসপাতালের তত্বাবধায়ক ডা. মেহেদী ইকবাল এর সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তার মুঠোফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | গণ মানুষের খবর

Theme Customized BY LatestNews