1. admin3@gonomanuserkhobor.com : Admin3 :
  2. smbipplob88@gmail.com : Masud Mukul : Masud Mukul
  3. newsbipplob2014@gmail.com : এস এম বিপ্লব ইসলাম : এস এম বিপ্লব ইসলাম
প্রচন্ড শীতে কাঁপছে মানুষ, বাড়ছে গরম কাপড়ের চাহিদা
শুক্রবার, ২১ জানুয়ারী ২০২২, ১১:৩৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম:

প্রচন্ড শীতে কাঁপছে মানুষ, বাড়ছে গরম কাপড়ের চাহিদা

সুন্দরগঞ্জ (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি
  • প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ৭ জানুয়ারী, ২০২২
  • ৩৮ বার পঠিত

পশ্চিমা কনকনে হিমেল বাতাস ও কুয়াশার কারণে প্রচণ্ড শীতে কাঁপছে গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জের মানুষ। দুদিন থেকে হঠাৎ করেই তীব্র কুয়াশা পড়তে শুরু করে। বৃহস্পতিবার সারাদিন কোথাও সূর্যের মুখ দেখা যায়নি। আকাশ মেঘাচ্ছন্ন ও ঘন কুয়াশায় আচ্ছন্ন হয়ে থাকে গোটা সুন্দরগঞ্জ উপজেলা। তাপমাত্রা দিনের বেলাতেই ১৯ ডিগ্রী সেলসিয়াসে নেমে আসে। সেই সাথে হিমেল হাওয়া বইতে থাকে। শীতের কারণে গোটা উপজেলার গরীব মানুষ গরম কাপড়ের অভাবে কাহিল হয়ে পড়েছে। তীব্র শীতের কারণে সন্ধ্যার পর থেকেই রাস্তায় লোক চলাচল কমে যায়। শীতের কবল থেকে বাঁচতে পুরাতন কাপড়ের দোকানগুলোতে মানুষের উপচে পড়া ভীড় লক্ষ্য করা গেছে।

সুন্দরগঞ্জ অঞ্চলে হঠাৎ করে বুধবার বিকাল থেকে পশ্চিমা কনকনে হিমেল বাতাস বইতে শুরু করে। হঠাৎ করে শীত শুরু হওয়ায় মানুষ চরম বিপাকে পড়ে। রাতে গুড়ি গুড়ি বৃষ্টির মত ঝড়েছে কুয়াশা। ফলে শীতের তীব্রতা মারাত্মকভাবে বেড়ে যায়। সন্ধ্যার পর থেকেই জুবুথুবু হয়ে পড়ে এ অঞ্চলের মানুষ। উপজেলার চরাঞ্চলের মানুষ ও গবাদি পশুর অবস্থা ভয়াবহ। হঠাৎ শুরু হওয়া এই শীতে উপজেলার বামনডাঙ্গা তারাপুর,হরিপুর, বেলকা,পাচঁপীর বন্যা নিয়ন্ত্রন বাঁধে আশ্রিত এবং চরাঞ্চলের মানুষ দুর্ভোগের কবলে পড়ে। শীতে সাধারণ মানুষ বিশেষ করে শিশু এবং বয়স্করা কষ্ট পাচ্ছে বেশি।

বুধবার ও বৃহস্পতিবার সারাদিন হিমেল বাতাস অব্যাহত ছিল। আকাশ পরিষ্কার ও রোদ উঠলেও শীতের তীব্রতা কমেনি। কৃষি বিভাগ সুত্রে জানা গেছে, কুয়াশার কারণে সরিষা ক্ষেতের ফুল ঝরে পড়ছে এবং বীজতলায় বোরো ধানের চারা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। এছাড়া অন্যান্য রবি ফসলও ক্ষতিগ্রস্ত হবে বলে আশংকা করছে কৃষিবিভাগ। উপজেলার চরাঞ্চলের মানুষ বিপাকে পড়ছে। ফলে মূল ভূমির সাথে চরাঞ্চলের যোগাযোগ ব্যাহত হচ্ছে। ঘন কুয়াশার কারণে অনেকে দিনের বেলায় গাড়ির হেডলাইড জ্বালিয়ে চলাচল করছে। ফলে চরাঞ্চলের মানুষরা যাতায়াতের ক্ষেত্রে চরম বিপাকে পড়ে।

এদিকে জেলার গ্রামীণ পরিবারগুলো গরম কাপড়ের অভাবে চরম দুর্ভোগে পড়েছে। শহরের গরম কাপড়ের দোকানগুলোতে এখন মানুষের উপচে পড়া ভীড়। এই সুযোগে গাউন মার্কেট ও গরম কাপড়ের দোকানগুলোতে ব্যবসায়িরা কাপড়ের দাম অস্বাভাবিক হারে বাড়িয়েছে। ফলে অর্থাভাবে দরিদ্র মানুষদের পক্ষে শীতের কাপড় সংগ্রহ করা খুব কষ্টকর হয়ে দাড়িয়েছে। হঠাৎ করে শীতের প্রকোপ বেড়ে যাওয়ায় লেপ তোষক বানানোরও হিড়িক পড়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | গণ মানুষের খবর

Theme Customized BY LatestNews