1. [email protected] : Masud Mukul : Masud Mukul
  2. [email protected] : এস এম বিপ্লব ইসলাম : এস এম বিপ্লব ইসলাম
প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে গাইবান্ধার ফুলছড়িতে পাকা ঘর পাচ্ছেন ৭৫ গৃহহীন পরিবার
মঙ্গলবার, ২৬ জানুয়ারী ২০২১, ০৬:১৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম:

প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে গাইবান্ধার ফুলছড়িতে পাকা ঘর পাচ্ছেন ৭৫ গৃহহীন পরিবার

স্টাফ রিপোর্টার
  • প্রকাশের সময় : রবিবার, ৩ জানুয়ারী, ২০২১
  • ১০৭ বার পঠিত

“আশ্রনের অধিকার, শেখ হাসিনার উপহার” এ শ্লোগানকে ধারণ করে মুজিববর্ষে কোনো মানুষ গৃহহীন থাকবে না, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এমন নির্দেশে গাইবান্ধার ফুলছড়ি উপজেলার ভুমিহীন-গৃহহীন ৭৫ পরিবার পাচ্ছেন সেমি পাকা ঘর।
জানা যায়, প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের আশ্রয়ণ-২ প্রকল্প এর অধীনে গাইবান্ধার ফুলছড়ির গৃহহীন পরিবারের জন্য এটি বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী উপলক্ষে ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের জন্য চলতি অর্থবছরে ফুলছড়ি উপজেলার ২ টি ইউনিয়নে ৭৫ টি ঘর নির্মাণ করা হচ্ছে। এর মধ্যে কঞ্চিপাড়া ইউনিয়নে ৪৭ টি, ফজলুপুর ইউনিয়নে ২৮ টি ঘর বরাদ্দ নির্মান কাজ চলছে।
দুই কক্ষবিশিষ্ট সেমি পাকা ঘর নির্মাণে প্রতিটি ঘর বাবদ বরাদ্দ দেয়া হয়েছে ১ লাখ ৭১ হাজার টাকা। প্রতিটি পরিবারের জন্য থাকছে আধুনিক সুযোগ-সুবিধা সংবলিত দুই কক্ষবিশিষ্ট ঘর। টয়লেট, রান্না ও স্টোর রুম। এরই মধ্যে কাজের অগ্রগতিও প্রায় শেষের দিকে। প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উপহার এসব বাড়ি সুবিধাভোগিদের মাঝে বুঝে দিতে দ্রুত কাজ শেষ করতে মাঠ পর্যায়ে কাজ করছে উপজেলা প্রশাসন।
ফুলছড়ির চরাঞ্চলীয় ইউনিয়ন ফজলুপুরের উপকারভোগি মঞ্জুয়ারা বেগম জানান, দীর্ঘদিন অন্যের জমিতে ছাপড়া ঘর তুলে রাতযাপন করছিলাম। সারাদিন কাজ-কর্ম করে ঝড়-বাতাশের ভয়ে ভাঙা ঘরে ঠিকভাবে ঘুমাতে পারতাম না। এখন সরকারের পাকা ঘর পাব, সেটা কোনদিন ভাবতে পারিনি। তাই প্রধানমন্ত্রী শেখ হানিনা জন্য প্রাণভরে দোয়া করছি।
একই এলাকার উপকারভোগি বুলু রানী জানান, আমাদের চরের মানুষের কাছে টিনের ঘড় স্বপ্নের মতো সেখানে বিনামূল্য ইটের ঘর পাব কখনো কল্পনাও করিনি। এখন ইটের ঘড়ে থাকবো এটি আমাদের কাছে কল্পনার মতো।
ফজলুপুর ইউনিয়নের গুপ্ত মনির চরের বিধবা সাহেরা বেগম কান্না জড়িতে হয়ে বলেন, আমার স্বামী মারা যাবার পর বহু কষ্টে সন্তানদের নিয়ে জীবন যাপন করছি। আমি স্বপ্নেও ভাবিনি এই চরে পাকা ঘরে থাকতে পারবো। প্রধানমন্ত্রী আমাকে পাকা ঘর উপহার দিয়েছেন।
ফুলছড়ি উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আবু রায়হান দোলন বলেন, মানসম্মত ঘর দরিদ্র ও ভূমিহীনদের মাঝে তুলে দেয়াই এখন মূল লক্ষ্য। মুজিববর্ষ উপলক্ষে সরকার কর্তৃক প্রদেয় এই প্রকল্প অত্যন্ত সুন্দরভাবে এখন সম্পন্ন হওয়ার পথে। কাজ সমাপ্ত হলেই সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক নির্ধারিত সময়ের মধ্যে পরিবারগুরোর মধ্যে ঘড় বরাদ্দ দেয়া হবে। এই ঘর বরাদ্দে কোনো প্রকার তদবির ও অনৈতিক সুযোগ-সুবিধা যেন কেউ নিতে না পারে সেজন্য সার্বক্ষনিক তদারকি করা হচ্ছে।
গাইবান্ধা জেলা প্রশাসক আবদুল মতিন জানান, জেলায় কেউ যাতে গৃহহীন না থাকে সে লক্ষ্য নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে গৃহহীনদের বাড়ি নির্মান করে দেয়া হচ্ছে। পর্যায়ক্রমে এ সকল বাড়িতে বিদ্যুৎসহ যাবতীয় সুবিধা দেয়া হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | গণ মানুষের খবর

Theme Customized BY LatestNews